ঢাকা ০৯:৫০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তুরস্কে উচ্চতর ইসলামী গবেষণায় বাংলাদেশী শিক্ষার্থীর বড় সাফল্য

  • বার্তা কক্ষ
  • আপডেট সময় : ০৫:৩৫:১৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪
  • ২৭ বার পড়া হয়েছে

তুরস্কের বিখ্যাত আয়া সোফিয়া মসজিদ। ইনসেটে মুহাম্মাদ আমিনুল ইসলাম

তুরস্কের কায়সেরি উচ্চতর ইসলামি গবেষণা কেন্দ্রে (Kayseri Dini Yüksek İhtisas Merkezi) ইফতা বিভাগে (উচ্চতর ইসলামী আইন গবেষণা) প্রথম স্থান অর্জন করেছেন নেত্রকোনার তরুণ মুহাম্মাদ আমিনুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার তুরস্কে বসবাসকারী বাংলাদেশী এই শিক্ষার্থী জানান, কায়সেরির উচ্চতর ওই প্রতিষ্ঠানটিতে অধ্যায়নরত অন্তত ২০ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে শীর্ষস্থান লাভ করেছেন তিনি।

মুহাম্মাদ আমিনুল ইসলাম বলেন, গত ৯ এপ্রিল আমাদের শিক্ষাবর্ষ সমাপ্ত হয়। তিন বছর মেয়াদি আমাদের এই ব্যাচে তাজিকিস্তান, উজবেকিস্তান, আজারবাইজান, কিরগিজস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আমি-সহ সর্বমোট ২০ জন শিক্ষার্থী ছিলাম। তিন বছরের কোর্সটির সার্বিক মূল্যায়ন ও ফলাফল গত ১৩ মে প্রকাশিত হয়। সেখানে আমি প্রথম স্থান অর্জন করতে সক্ষম হই।

‘প্রকাশিত ফলাফলে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছেন মুনির ফিরোজি এবং তৃতীয় হয়েছেন লুতফুল্লাহ জাহিদ। তারা দুজনেই আফগানিস্তানের শিক্ষার্থী,’- জানান মুহাম্মাদ আমিনুল।

মুহাম্মাদ আমিনুল ইসলামের বাড়ি নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার বাড়লা গ্রামে। তার বাবার নাম হেলাল উদ্দিন। ২০১৭ সালে তিনি পড়াশোনার উদ্দেশ্যে তুরস্কে পাড়ি জমান। দেশের বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করেছেন তিনি। হিফজ পড়েছেন নিজ জেলার জামিয়া মাদানিয়া দারুল উলুম মাদরাসায়। পরে যথাক্রমে রাজধানীর জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া, জামেউল উলুম মাদরাসা ও চট্টগ্রামের আল জামেয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মঈনুল ইসলামে (হাটহাজারী) পড়াশোনা করেছেন।

 

ট্যাগস :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

আপলোডকারীর তথ্য

সাতক্ষীরায় যুব কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে স্থানীয় কারিগরি ও বৃত্তিমুলক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা শীর্ষক সংলাপ

তুরস্কে উচ্চতর ইসলামী গবেষণায় বাংলাদেশী শিক্ষার্থীর বড় সাফল্য

আপডেট সময় : ০৫:৩৫:১৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪

তুরস্কের কায়সেরি উচ্চতর ইসলামি গবেষণা কেন্দ্রে (Kayseri Dini Yüksek İhtisas Merkezi) ইফতা বিভাগে (উচ্চতর ইসলামী আইন গবেষণা) প্রথম স্থান অর্জন করেছেন নেত্রকোনার তরুণ মুহাম্মাদ আমিনুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার তুরস্কে বসবাসকারী বাংলাদেশী এই শিক্ষার্থী জানান, কায়সেরির উচ্চতর ওই প্রতিষ্ঠানটিতে অধ্যায়নরত অন্তত ২০ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে শীর্ষস্থান লাভ করেছেন তিনি।

মুহাম্মাদ আমিনুল ইসলাম বলেন, গত ৯ এপ্রিল আমাদের শিক্ষাবর্ষ সমাপ্ত হয়। তিন বছর মেয়াদি আমাদের এই ব্যাচে তাজিকিস্তান, উজবেকিস্তান, আজারবাইজান, কিরগিজস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আমি-সহ সর্বমোট ২০ জন শিক্ষার্থী ছিলাম। তিন বছরের কোর্সটির সার্বিক মূল্যায়ন ও ফলাফল গত ১৩ মে প্রকাশিত হয়। সেখানে আমি প্রথম স্থান অর্জন করতে সক্ষম হই।

‘প্রকাশিত ফলাফলে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছেন মুনির ফিরোজি এবং তৃতীয় হয়েছেন লুতফুল্লাহ জাহিদ। তারা দুজনেই আফগানিস্তানের শিক্ষার্থী,’- জানান মুহাম্মাদ আমিনুল।

মুহাম্মাদ আমিনুল ইসলামের বাড়ি নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার বাড়লা গ্রামে। তার বাবার নাম হেলাল উদ্দিন। ২০১৭ সালে তিনি পড়াশোনার উদ্দেশ্যে তুরস্কে পাড়ি জমান। দেশের বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করেছেন তিনি। হিফজ পড়েছেন নিজ জেলার জামিয়া মাদানিয়া দারুল উলুম মাদরাসায়। পরে যথাক্রমে রাজধানীর জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া, জামেউল উলুম মাদরাসা ও চট্টগ্রামের আল জামেয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মঈনুল ইসলামে (হাটহাজারী) পড়াশোনা করেছেন।