ঢাকা ০২:৪৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রেকর্ড ভেঙে সর্বোচ্চ ৪২.৭ ডিগ্রি তাপমাত্রা চুয়াডাঙ্গায়

  • বার্তা কক্ষ
  • আপডেট সময় : ০১:৫৬:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪
  • ১৯ বার পড়া হয়েছে

 

দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সীমান্তবর্তী জেলা চুয়াডাঙ্গায় প্রায় প্রতিদিনই সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড হচ্ছে। বৈশাখের প্রথম দিন থেকেই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে চুয়াডাঙ্গার তাপমাত্রা। কখনো মৃদু, কখনো মাঝারি এবং কখনো তীব্র থেকে অতি তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে চলেছে এখানে।

সকালের সূর্য ওঠার সময় থেকেই প্রখর তেজ থাকছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে তাপমাত্রার পারদ। রোদ যেন আগুনের ফুলকি হয়ে ঝরছে। আগুন ঝরা রোদের তেজে ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক জীবনযাপন।

খুব প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হচ্ছেন না কেউ। সব থেকে বেশি ধুকছে খেটে খাওয়া শ্রমিকরা। বিশেষ করে এখন ধানকাটা মৌসুম হওয়ায় তাপপ্রবাহের কারণে কৃষকের কষ্ট বেড়ে গেছে।

চুয়াডাঙ্গায় তীব্র তাপপ্রবাহ, শরবত বিক্রেতাদের ‘পোয়াবারো’চুয়াডাঙ্গায় তীব্র তাপপ্রবাহ, শরবত বিক্রেতাদের ‘পোয়াবারো’

এদিকে, শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) চুয়াডাঙ্গায় আবারও দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জামিনুর রহমান বলেন, “আজ বিকেল ৩টায় চুয়াডাঙ্গায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪২.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ জেলায় বাতাসের আর্দ্রতা ১৬%।”

এমন আবহাওয়া আরও কয়েকদিন অব্যাহত থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৩৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস হলে তাকে মৃদু তাপপ্রবাহ বলে। ৩৮ থেকে ৩৯.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রাকে মাঝারি তাপপ্রবাহ বলা হয়। ৪০ থেকে ৪১.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে তাপমাত্রাকে তীব্র তাপপ্রবাহ বলা হয়। আর অতি তীব্র তাপপ্রবাহ হয় তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রি বা এর বেশি হলে।

ট্যাগস :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

আপলোডকারীর তথ্য

সেন্টমার্টিনে মিয়ানমারের গোলা পড়া বন্ধ করতে চেষ্টা চলছে: ওবায়দুল কাদের

রেকর্ড ভেঙে সর্বোচ্চ ৪২.৭ ডিগ্রি তাপমাত্রা চুয়াডাঙ্গায়

আপডেট সময় : ০১:৫৬:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪

 

দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সীমান্তবর্তী জেলা চুয়াডাঙ্গায় প্রায় প্রতিদিনই সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড হচ্ছে। বৈশাখের প্রথম দিন থেকেই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে চুয়াডাঙ্গার তাপমাত্রা। কখনো মৃদু, কখনো মাঝারি এবং কখনো তীব্র থেকে অতি তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে চলেছে এখানে।

সকালের সূর্য ওঠার সময় থেকেই প্রখর তেজ থাকছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে তাপমাত্রার পারদ। রোদ যেন আগুনের ফুলকি হয়ে ঝরছে। আগুন ঝরা রোদের তেজে ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক জীবনযাপন।

খুব প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হচ্ছেন না কেউ। সব থেকে বেশি ধুকছে খেটে খাওয়া শ্রমিকরা। বিশেষ করে এখন ধানকাটা মৌসুম হওয়ায় তাপপ্রবাহের কারণে কৃষকের কষ্ট বেড়ে গেছে।

চুয়াডাঙ্গায় তীব্র তাপপ্রবাহ, শরবত বিক্রেতাদের ‘পোয়াবারো’চুয়াডাঙ্গায় তীব্র তাপপ্রবাহ, শরবত বিক্রেতাদের ‘পোয়াবারো’

এদিকে, শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) চুয়াডাঙ্গায় আবারও দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জামিনুর রহমান বলেন, “আজ বিকেল ৩টায় চুয়াডাঙ্গায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪২.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ জেলায় বাতাসের আর্দ্রতা ১৬%।”

এমন আবহাওয়া আরও কয়েকদিন অব্যাহত থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৩৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস হলে তাকে মৃদু তাপপ্রবাহ বলে। ৩৮ থেকে ৩৯.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রাকে মাঝারি তাপপ্রবাহ বলা হয়। ৪০ থেকে ৪১.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে তাপমাত্রাকে তীব্র তাপপ্রবাহ বলা হয়। আর অতি তীব্র তাপপ্রবাহ হয় তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রি বা এর বেশি হলে।