ঢাকা ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সরকার সব রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করেছে: ফখরুল

  • বার্তা কক্ষ
  • আপডেট সময় : ০৫:৩৩:৩৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ জুন ২০২৪
  • ২০ বার পড়া হয়েছে

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

 

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ ‘চরমভাবে’ দেউলিয়া হওয়ার পর থেকে দুর্নীতিবাজ আমলা ও সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা সৃষ্টি করে ক্ষমতায় আছে।

বর্তমান সরকার মেগা প্রকল্পের নামে চীন থেকে অর্থ সংগ্রহ করছে এবং কমিশন হিসেবে বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎ করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগ এখন বেনজীর (সাবেক আইজিপি) ও আজিজের (সাবেক সেনাপ্রধান) দল। আওয়ামী লীগ চরমভাবে দেউলিয়া হয়ে যাওয়ায় এখন আর রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান নয়। তাই দুর্নীতিবাজ আমলা ও সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে আঁতাত করে তাদের ক্ষমতায় থাকতে হবে।’

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মঙ্গলবার (১১ জুন) গিলন্ডোর মুন্না সিটিতে ঢাকা বিভাগীয় শাখা এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

ফখরুল বলেন, বাংলাদেশ এখন শুধু আধিপত্যবাদই নয়, ফ্যাসিবাদেরও কবলে। ‘এখন যারা দেশ শাসন করছে তাদের সঙ্গে জনগণের কোনো সম্পর্ক নেই।’

তিনি বলেন, ভোটার ও প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোকে প্রতিযোগিতার বাইরে রেখে সরকার নিজস্ব স্টাইলে একতরফা নির্বাচনের আয়োজন করছে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকার সব রাষ্ট্রযন্ত্র দখল করে রেখেছে, সব রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে দিয়েছে।

ব্যাপক দুর্নীতি ও লুটপাটের কারণে দেশের অর্থনীতি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি।

বিএনপি নেতা উল্লেখ করেন, সোমবার নিউজপেপার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (নোয়াব) আয়োজিত এক সেমিনারে দেশের বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদরা দেশের অর্থনীতি বিপর্যয়ের দ্বারপ্রান্তে বলে সতর্ক করেছেন।

ফখরুল আরও বলেন, ‘সরকার এটা মানতে নারাজ। তারা সবসময় দাবি করে যে অর্থনীতি খুব ভাল করছে। কিন্তু তাদের দুর্নীতি অব্যাহত রয়েছে। তারা প্রতিনিয়ত দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়ার নতুন নতুন উপায় খুঁজছে। মেগা প্রকল্পের মাধ্যমে তারা মেগা দুর্নীতি করছে।’

ফখরুল বলেন, এটা বিস্ময়কর যে মেগা প্রকল্পের অধিকাংশই চীন অর্থায়ন করে।

তিনি বলেন, ‘তারা (চীন) বাংলাদেশ সরকারকে তহবিল দেয়, যারা তাদের পছন্দের ব্যক্তিকে টেন্ডার দেয়। সরকার সমর্থিত এক বা দুজন ব্যক্তি তহবিল সুরক্ষিত করার জন্য পাঁচ শতাংশ কমিশন পান এবং বাকি ৫ শতাংশ প্রকল্পে কাজ বণ্টনের জন্য দেওয়া হয়। আমরা অনেকেই জানি না যে চীন থেকে আনা তহবিল কমিশনের অধীন।’

বর্তমান শাসকগোষ্ঠী কমিশন না নিয়ে কিছু করে না বলেও অভিযোগ করেন তিনি। ‘‘শুধু তাই নয়, এখানে বেশ কয়েকটি নতুন আর্থিক প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। এমনই একটি প্রতিষ্ঠানের নাম ‘নগদ’।’’

ফখরুল বলেন, ‘নগদ’-এর প্রতিটি লেনদেন থেকে কমিশনের একটি নির্দিষ্ট অংশ বিদেশে পাঠানো হয়। তিনি বলেন, ‘আমি কারও নাম উল্লেখ করতে চাই না, তবে এই অর্থ বিদেশে নির্দিষ্ট ব্যক্তির কাছে যায়। এবং এটি কেবল একটি একক ঘটনা নয়; এরকম আরও অনেক উদাহরণ আছে।’

দেশের এমন পরিস্থিতিতে দেশ বাঁচাতে এবং বর্তমান সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে সর্বস্তরের জনগণ, বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মকে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান বিএনপি মহাসচিব।

ট্যাগস :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

আপলোডকারীর তথ্য

সাতক্ষীরায় যুব কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে স্থানীয় কারিগরি ও বৃত্তিমুলক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা শীর্ষক সংলাপ

সরকার সব রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করেছে: ফখরুল

আপডেট সময় : ০৫:৩৩:৩৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ জুন ২০২৪

 

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ ‘চরমভাবে’ দেউলিয়া হওয়ার পর থেকে দুর্নীতিবাজ আমলা ও সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা সৃষ্টি করে ক্ষমতায় আছে।

বর্তমান সরকার মেগা প্রকল্পের নামে চীন থেকে অর্থ সংগ্রহ করছে এবং কমিশন হিসেবে বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎ করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগ এখন বেনজীর (সাবেক আইজিপি) ও আজিজের (সাবেক সেনাপ্রধান) দল। আওয়ামী লীগ চরমভাবে দেউলিয়া হয়ে যাওয়ায় এখন আর রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান নয়। তাই দুর্নীতিবাজ আমলা ও সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে আঁতাত করে তাদের ক্ষমতায় থাকতে হবে।’

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মঙ্গলবার (১১ জুন) গিলন্ডোর মুন্না সিটিতে ঢাকা বিভাগীয় শাখা এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

ফখরুল বলেন, বাংলাদেশ এখন শুধু আধিপত্যবাদই নয়, ফ্যাসিবাদেরও কবলে। ‘এখন যারা দেশ শাসন করছে তাদের সঙ্গে জনগণের কোনো সম্পর্ক নেই।’

তিনি বলেন, ভোটার ও প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোকে প্রতিযোগিতার বাইরে রেখে সরকার নিজস্ব স্টাইলে একতরফা নির্বাচনের আয়োজন করছে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকার সব রাষ্ট্রযন্ত্র দখল করে রেখেছে, সব রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে দিয়েছে।

ব্যাপক দুর্নীতি ও লুটপাটের কারণে দেশের অর্থনীতি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি।

বিএনপি নেতা উল্লেখ করেন, সোমবার নিউজপেপার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (নোয়াব) আয়োজিত এক সেমিনারে দেশের বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদরা দেশের অর্থনীতি বিপর্যয়ের দ্বারপ্রান্তে বলে সতর্ক করেছেন।

ফখরুল আরও বলেন, ‘সরকার এটা মানতে নারাজ। তারা সবসময় দাবি করে যে অর্থনীতি খুব ভাল করছে। কিন্তু তাদের দুর্নীতি অব্যাহত রয়েছে। তারা প্রতিনিয়ত দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়ার নতুন নতুন উপায় খুঁজছে। মেগা প্রকল্পের মাধ্যমে তারা মেগা দুর্নীতি করছে।’

ফখরুল বলেন, এটা বিস্ময়কর যে মেগা প্রকল্পের অধিকাংশই চীন অর্থায়ন করে।

তিনি বলেন, ‘তারা (চীন) বাংলাদেশ সরকারকে তহবিল দেয়, যারা তাদের পছন্দের ব্যক্তিকে টেন্ডার দেয়। সরকার সমর্থিত এক বা দুজন ব্যক্তি তহবিল সুরক্ষিত করার জন্য পাঁচ শতাংশ কমিশন পান এবং বাকি ৫ শতাংশ প্রকল্পে কাজ বণ্টনের জন্য দেওয়া হয়। আমরা অনেকেই জানি না যে চীন থেকে আনা তহবিল কমিশনের অধীন।’

বর্তমান শাসকগোষ্ঠী কমিশন না নিয়ে কিছু করে না বলেও অভিযোগ করেন তিনি। ‘‘শুধু তাই নয়, এখানে বেশ কয়েকটি নতুন আর্থিক প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। এমনই একটি প্রতিষ্ঠানের নাম ‘নগদ’।’’

ফখরুল বলেন, ‘নগদ’-এর প্রতিটি লেনদেন থেকে কমিশনের একটি নির্দিষ্ট অংশ বিদেশে পাঠানো হয়। তিনি বলেন, ‘আমি কারও নাম উল্লেখ করতে চাই না, তবে এই অর্থ বিদেশে নির্দিষ্ট ব্যক্তির কাছে যায়। এবং এটি কেবল একটি একক ঘটনা নয়; এরকম আরও অনেক উদাহরণ আছে।’

দেশের এমন পরিস্থিতিতে দেশ বাঁচাতে এবং বর্তমান সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে সর্বস্তরের জনগণ, বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মকে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান বিএনপি মহাসচিব।