ঢাকা ০৮:০১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ হারল বাংলাদেশের মেয়েরা

  • বার্তা কক্ষ
  • আপডেট সময় : ০৫:৫৮:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ মার্চ ২০২৪
  • ৭৮ বার পড়া হয়েছে

বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডে জিতে সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া নারী ক্রিকেট দল।

আইসিসি উইমেন’স চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচে রবিবার (২৪ মার্চ) মিরপুরে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও সহজ জয় পেয়েছে সফরকারীরা।

টস জিতে আগে ব্যাটে নামা বাংলাদেশের মেয়েদের ৯৭ রানে গুটিয়ে দিয়েছে তারা। জবাবে ৬ উইকেট হাতে রেখেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় অজিরা।

বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের সময়েই নিজেদের কাজটা সহজ করে নেয় অস্ট্রেলিয়া। ১০০ রানের নিচেই বাংলাদেশকে আটকে রেখেছিল তারা। দরকার ছিল ধীরস্থির ব্যাটিং। সেটাই করেছে অস্ট্রেলিয়া।

লক্ষ্য ছোট হলেও রান তাড়ায় খুব বেশি তাড়াহুড়ো দেখাননি কেউ। ৪ উইকেট হারিয়ে ২৩ ওভারেই জয় নিশ্চিত করে অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা। ৩৫ রান করে অপরাজিত ছিলেন পেরি। অ্যাশলি গার্ডনার করেছেন ২০ রান। বাংলাদেশের হয়ে একটি করে উইকেট নেন সুলতানা ও রাবেয়া।

যদিও অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং খুব একটা মসৃণ ছিল না। ৯৮ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ফোব লিচফিল্ডের উইকেট হারায় তারা। ফাহিমার রান আউটের ফাঁদে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় তাকে। চলতি সিরিজে দুই ম্যাচেই রানের দিক থেকে হতাশ করেছেন এই ওপেনার। অধিনায়ক অ্যালিসা হিলিও বড় করতে পারেননি ইনিংস। নিজের জন্মদিনে আউট হয়েছেন মোটে ১৫ রান করে।

রাবেয়া খানের বলে চার্জ করে খেলতে গিয়ে নাহিদাকে ক্যাচ দেন হিলি। ২৪ রানে দুই উইকেট পতনের অজিদের চাপমুক্ত করার দায়িত্ব আসে বেথ মুনি এবং এলিস পেরির ওপর। তবে মুনিও হতাশ করেছেন। ১২ বলে ৮ করে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় তাকে। তাহলিয়া ম্যাকগ্রা ২২ বলে করেছেন ১০। তবে কাজের কাজ করে গিয়েছেন। অ্যাশলি গার্ডনারকে নিয়ে বাকি ম্যাচটা শেষ করেছেন পেরি।

এর আগে, ব্যাট করতে নেমে হতাশ করে বাংলাদেশের মেয়েরা। প্রত্যেকেই এদিন ছিলেন বিবর্ণ। বাংলাদেশের হয়ে দুই অঙ্কের রান করতে পেরেছেন তিনজন। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টাইগ্রেসদের ইনিংস থামে ৯৭ রানে।

ইনিংসের শুরুতে একের পর এক ডট বল খেলেছেন দুই ওপেনার ফারজানা পিংকি এবং সোবহানা মোস্তারি। পাওয়ার প্লেতেই ছিল চার মেডেন ওভার। পাওয়ার প্লেতে ১৭ রান আসে, তবে বিদায় নেন সোবহানা। আগের ম্যাচে শূন্য রানে আউট হওয়া পিংকি এদিন ছিলেন আরও ধীর। ১৫তম ওভারে সোফি মলিনিউয়ের বলে যখন আউট হন, তখন ৫২ বলে করেছেন মোটে ৭ রান।

এরপরের দুই ওভারে বাংলাদেশ হারিয়েছে আরও দুই উইকেট। সোফির হাতে ক্যাচ দিয়ে মুরশিদা আউট হয়েছেন অ্যাশলি গার্ডনারের বলে। পরের ওভারে এলবিডব্লিউ হয়েছেন দলের সবচেয়ে বড় ভরসা অধিনায়ক জ্যোতি। ৫ বলে ১ রান করে থামে তার ইনিংস। ফাহিমা খাতুন এবং রিতু মণি এরপর গড়েছেন ২৭ রানের জুটি। দলীয় স্কোর ৫০ ছাড়ায় তাদের দুজনের ১০ রানের দুই ইনিংসে। পরপর দুই ওভারে আউট হয়েছেন তারাও। দুজনই উইকেট দিয়ে এসেছেন উড়িয়ে খেলতে গিয়ে। রিতুর উইকেট পেয়েছেন সোফি। আর ফাহিমার উইকেট গিয়েছে জর্জিয়া ওয়্যারহ্যামের ঝুলিতে।

এই টানা ব্যর্থতার মাঝেও ব্যতিক্রম ছিলেন নাহিদা। শেষে এসে ২২ রানের ইনিংস দিয়ে দলের স্কোর টেনে নিয়েছেন ১০৫ পর্যন্ত। অজিদের পক্ষে ১০ রান দিয়ে ৩ উইকেট পেয়েছেন সোফি মলিনিউ। ২ উইকেট পেয়েছেন অ্যাশলি গার্ডনার, অ্যালানা কিং এবং জর্জিয়া ওয়্যারহ্যাম। একটি উইকেট মেগান শ্যুটের।

ট্যাগস :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

আপলোডকারীর তথ্য

সাতক্ষীরায় যুব কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে স্থানীয় কারিগরি ও বৃত্তিমুলক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা শীর্ষক সংলাপ

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ হারল বাংলাদেশের মেয়েরা

আপডেট সময় : ০৫:৫৮:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ মার্চ ২০২৪

বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডে জিতে সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া নারী ক্রিকেট দল।

আইসিসি উইমেন’স চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচে রবিবার (২৪ মার্চ) মিরপুরে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও সহজ জয় পেয়েছে সফরকারীরা।

টস জিতে আগে ব্যাটে নামা বাংলাদেশের মেয়েদের ৯৭ রানে গুটিয়ে দিয়েছে তারা। জবাবে ৬ উইকেট হাতে রেখেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় অজিরা।

বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের সময়েই নিজেদের কাজটা সহজ করে নেয় অস্ট্রেলিয়া। ১০০ রানের নিচেই বাংলাদেশকে আটকে রেখেছিল তারা। দরকার ছিল ধীরস্থির ব্যাটিং। সেটাই করেছে অস্ট্রেলিয়া।

লক্ষ্য ছোট হলেও রান তাড়ায় খুব বেশি তাড়াহুড়ো দেখাননি কেউ। ৪ উইকেট হারিয়ে ২৩ ওভারেই জয় নিশ্চিত করে অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা। ৩৫ রান করে অপরাজিত ছিলেন পেরি। অ্যাশলি গার্ডনার করেছেন ২০ রান। বাংলাদেশের হয়ে একটি করে উইকেট নেন সুলতানা ও রাবেয়া।

যদিও অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং খুব একটা মসৃণ ছিল না। ৯৮ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ফোব লিচফিল্ডের উইকেট হারায় তারা। ফাহিমার রান আউটের ফাঁদে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় তাকে। চলতি সিরিজে দুই ম্যাচেই রানের দিক থেকে হতাশ করেছেন এই ওপেনার। অধিনায়ক অ্যালিসা হিলিও বড় করতে পারেননি ইনিংস। নিজের জন্মদিনে আউট হয়েছেন মোটে ১৫ রান করে।

রাবেয়া খানের বলে চার্জ করে খেলতে গিয়ে নাহিদাকে ক্যাচ দেন হিলি। ২৪ রানে দুই উইকেট পতনের অজিদের চাপমুক্ত করার দায়িত্ব আসে বেথ মুনি এবং এলিস পেরির ওপর। তবে মুনিও হতাশ করেছেন। ১২ বলে ৮ করে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় তাকে। তাহলিয়া ম্যাকগ্রা ২২ বলে করেছেন ১০। তবে কাজের কাজ করে গিয়েছেন। অ্যাশলি গার্ডনারকে নিয়ে বাকি ম্যাচটা শেষ করেছেন পেরি।

এর আগে, ব্যাট করতে নেমে হতাশ করে বাংলাদেশের মেয়েরা। প্রত্যেকেই এদিন ছিলেন বিবর্ণ। বাংলাদেশের হয়ে দুই অঙ্কের রান করতে পেরেছেন তিনজন। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টাইগ্রেসদের ইনিংস থামে ৯৭ রানে।

ইনিংসের শুরুতে একের পর এক ডট বল খেলেছেন দুই ওপেনার ফারজানা পিংকি এবং সোবহানা মোস্তারি। পাওয়ার প্লেতেই ছিল চার মেডেন ওভার। পাওয়ার প্লেতে ১৭ রান আসে, তবে বিদায় নেন সোবহানা। আগের ম্যাচে শূন্য রানে আউট হওয়া পিংকি এদিন ছিলেন আরও ধীর। ১৫তম ওভারে সোফি মলিনিউয়ের বলে যখন আউট হন, তখন ৫২ বলে করেছেন মোটে ৭ রান।

এরপরের দুই ওভারে বাংলাদেশ হারিয়েছে আরও দুই উইকেট। সোফির হাতে ক্যাচ দিয়ে মুরশিদা আউট হয়েছেন অ্যাশলি গার্ডনারের বলে। পরের ওভারে এলবিডব্লিউ হয়েছেন দলের সবচেয়ে বড় ভরসা অধিনায়ক জ্যোতি। ৫ বলে ১ রান করে থামে তার ইনিংস। ফাহিমা খাতুন এবং রিতু মণি এরপর গড়েছেন ২৭ রানের জুটি। দলীয় স্কোর ৫০ ছাড়ায় তাদের দুজনের ১০ রানের দুই ইনিংসে। পরপর দুই ওভারে আউট হয়েছেন তারাও। দুজনই উইকেট দিয়ে এসেছেন উড়িয়ে খেলতে গিয়ে। রিতুর উইকেট পেয়েছেন সোফি। আর ফাহিমার উইকেট গিয়েছে জর্জিয়া ওয়্যারহ্যামের ঝুলিতে।

এই টানা ব্যর্থতার মাঝেও ব্যতিক্রম ছিলেন নাহিদা। শেষে এসে ২২ রানের ইনিংস দিয়ে দলের স্কোর টেনে নিয়েছেন ১০৫ পর্যন্ত। অজিদের পক্ষে ১০ রান দিয়ে ৩ উইকেট পেয়েছেন সোফি মলিনিউ। ২ উইকেট পেয়েছেন অ্যাশলি গার্ডনার, অ্যালানা কিং এবং জর্জিয়া ওয়্যারহ্যাম। একটি উইকেট মেগান শ্যুটের।