ঢাকা ০৩:১০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৮৩ হাজার টন চাল আমদানির অনুমতি

  • বার্তা কক্ষ
  • আপডেট সময় : ০৫:৪১:৪৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪
  • ৭৪ বার পড়া হয়েছে

বেসরকারিভাবে ৮৩ হাজার মেট্রিক টন সেদ্ধ ও আতপ চাল আমদানির অনুমতি দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়। ৩০টি প্রতিষ্ঠান এই চাল আমদানির অনুমতি পাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) এসব প্রতিষ্ঠানকে চাল আমদানির অনুমতি দিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।

আমদানি করা চালের মধ্যে থাকবে ৪৯ হাজার টন সেদ্ধ চাল এবং আতপ চাল ৩৪ হাজার টন।

চাল আমদানির শর্তে বলা হয়েছে, বরাদ্দ পাওয়া আমদানিকারকদের আগামী ২৫ এপ্রিলের মধ্যে পুরো চাল বাংলাদেশে বাজারজাতকরণ করতে হবে। আমদানি করা চালের পরিমাণ, গুদামজাত ও বাজারজাত করার তথ্য সংশ্লিষ্ট জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রককে জানাতে হবে। বরাদ্দের অতিরিক্ত আইপি (ইমপোর্ট পারমিট) জারি করা যাবে না।

খাদ্য মন্ত্রণালয় বলছে, আমদানি করা চাল বস্তায় করে বিক্রি করতে হবে, মালিকের নাম দিয়ে পুনরায় প্যাকেটজাত করা যাবে না।

বেসরকারি খাতকে আমদানির সুযোগ দিতে গত ৮ ফেব্রুয়ারি চালের আমদানি শুল্ক কমিয়ে দেয় সরকার। তখন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) চালের ওপর ২৫ শতাংশ আমদানি শুল্ক পুরোপুরি প্রত্যাহার করে নেয়। এছাড়া আমদানিতে রেগুলেটরি ডিউটি ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে।

ট্যাগস :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

আপলোডকারীর তথ্য

পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশনা

৮৩ হাজার টন চাল আমদানির অনুমতি

আপডেট সময় : ০৫:৪১:৪৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪

বেসরকারিভাবে ৮৩ হাজার মেট্রিক টন সেদ্ধ ও আতপ চাল আমদানির অনুমতি দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়। ৩০টি প্রতিষ্ঠান এই চাল আমদানির অনুমতি পাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) এসব প্রতিষ্ঠানকে চাল আমদানির অনুমতি দিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।

আমদানি করা চালের মধ্যে থাকবে ৪৯ হাজার টন সেদ্ধ চাল এবং আতপ চাল ৩৪ হাজার টন।

চাল আমদানির শর্তে বলা হয়েছে, বরাদ্দ পাওয়া আমদানিকারকদের আগামী ২৫ এপ্রিলের মধ্যে পুরো চাল বাংলাদেশে বাজারজাতকরণ করতে হবে। আমদানি করা চালের পরিমাণ, গুদামজাত ও বাজারজাত করার তথ্য সংশ্লিষ্ট জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রককে জানাতে হবে। বরাদ্দের অতিরিক্ত আইপি (ইমপোর্ট পারমিট) জারি করা যাবে না।

খাদ্য মন্ত্রণালয় বলছে, আমদানি করা চাল বস্তায় করে বিক্রি করতে হবে, মালিকের নাম দিয়ে পুনরায় প্যাকেটজাত করা যাবে না।

বেসরকারি খাতকে আমদানির সুযোগ দিতে গত ৮ ফেব্রুয়ারি চালের আমদানি শুল্ক কমিয়ে দেয় সরকার। তখন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) চালের ওপর ২৫ শতাংশ আমদানি শুল্ক পুরোপুরি প্রত্যাহার করে নেয়। এছাড়া আমদানিতে রেগুলেটরি ডিউটি ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে।