ঢাকা ০৪:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘পাকিস্তানের পেস বোলিং সবচেয়ে শক্তিশালী’

  • বার্তা কক্ষ
  • আপডেট সময় : ০৫:৩১:৩৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪
  • ২৪ বার পড়া হয়েছে

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের পেস বোলিং লাইন-আপ সবচেয়ে বেশি শক্তিশালী বলে মনে করেন দেশটি সাবেক অধিনায়ক শহিদ আফ্রিদি। তার মতে, বিশ্বকাপ দলে থাকা পাকিস্তানের পাঁচ পেসার অনেক বেশি দক্ষ। বিশ্বকাপে কোন দলের পাকিস্তানের মত শক্তিশালী বোলিং লাইন-আপ নেই।

পাঁচ পেসারকে নিয়ে এবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে নামবে পাকিস্তান। দলের সেরা পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদির সাথে আরো আছেন অভিজ্ঞ মোহাম্মদ আমির, হারিস রউফ, নাসিম শাহ ও আব্বাস আফ্রিদি।

শাহিনের নেতৃত্বাধীন পাকিস্তানের এই পেস আক্রমণই আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি শক্তিশালী বলে মনে করেন শহিদ আফ্রিদি।

আইসিসির পোস্ট করা একটি ভিডিও বার্তায় বিশ্বকাপে শুভেচ্ছা দূত আফ্রিদি বলেন, ‘আমার মনে হয়, বিশ্বের কোন ক্রিকেট দলে এমন শক্তিশালী বোলিং লাইনআপ নেই। আমাদের চার পেস বোলারই অনেক বেশি দক্ষ। এমনকি বেঞ্চে থাকা বোলার আব্বাস আফ্রিদিও স্লোয়ার বোলিংয়ে বেশ পারদর্শী।’

বিশ্ব মানের ব্যাটারদের বিপক্ষে পাকিস্তানের বোলাররা দারুণ পারফর্ম করবে বলে মনে করেন শহিদ আফ্রিদি। শক্তিশালী বোলিং লাইন-আপের জন্য আসন্ন বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে ফেভারিট বলছেন শহিদ আফ্রিদি।

তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানের প্রধান শক্তি বোলিং। বোলিং দিয়েই প্রতিপক্ষ ঘায়েল করার পরিকল্পনা করে তারা। দলের ব্যাটিংও ভালো হচ্ছে। বড় মঞ্চে কিভাবে পারফর্ম করতে হয়, সেটি জানে দলের ব্যাটাররা। তবে বোলিংই পাকিস্তানকে সাফল্য এনে দিবে। সব মিলিয়ে আগামী বিশ্বকাপে অন্যতম ফেভারিট পাকিস্তান।’

২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠলেও ভারতের কাছে হেরে শিরোপা জিততে পারেনি পাকিস্তান। তবে ২০০৯ সালে পরের বিশ্বকাপেই শিরোপা জিতে নেয় পাকিস্তান।

২০০৯ সালের পর ২০২২ সালে অস্ট্রেলিয়ার অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছিলো পাকিস্তান। কিন্তু ইংল্যান্ডের কাছে হেরে শিরোপা জয়ের সুযোগ হাতছাড়া করে পাকরা।

বিশ্বকাপে ‘এ’ গ্রুপে খেলবে পাকিস্তান। ওই গ্রুপে তাদের প্রতিপক্ষ চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও আয়ারল্যান্ড। ৬ জুন ডালাসে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করবে বাবর-রিজওয়ানরা।

 

ট্যাগস :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

আপলোডকারীর তথ্য

পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশনা

‘পাকিস্তানের পেস বোলিং সবচেয়ে শক্তিশালী’

আপডেট সময় : ০৫:৩১:৩৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের পেস বোলিং লাইন-আপ সবচেয়ে বেশি শক্তিশালী বলে মনে করেন দেশটি সাবেক অধিনায়ক শহিদ আফ্রিদি। তার মতে, বিশ্বকাপ দলে থাকা পাকিস্তানের পাঁচ পেসার অনেক বেশি দক্ষ। বিশ্বকাপে কোন দলের পাকিস্তানের মত শক্তিশালী বোলিং লাইন-আপ নেই।

পাঁচ পেসারকে নিয়ে এবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে নামবে পাকিস্তান। দলের সেরা পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদির সাথে আরো আছেন অভিজ্ঞ মোহাম্মদ আমির, হারিস রউফ, নাসিম শাহ ও আব্বাস আফ্রিদি।

শাহিনের নেতৃত্বাধীন পাকিস্তানের এই পেস আক্রমণই আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি শক্তিশালী বলে মনে করেন শহিদ আফ্রিদি।

আইসিসির পোস্ট করা একটি ভিডিও বার্তায় বিশ্বকাপে শুভেচ্ছা দূত আফ্রিদি বলেন, ‘আমার মনে হয়, বিশ্বের কোন ক্রিকেট দলে এমন শক্তিশালী বোলিং লাইনআপ নেই। আমাদের চার পেস বোলারই অনেক বেশি দক্ষ। এমনকি বেঞ্চে থাকা বোলার আব্বাস আফ্রিদিও স্লোয়ার বোলিংয়ে বেশ পারদর্শী।’

বিশ্ব মানের ব্যাটারদের বিপক্ষে পাকিস্তানের বোলাররা দারুণ পারফর্ম করবে বলে মনে করেন শহিদ আফ্রিদি। শক্তিশালী বোলিং লাইন-আপের জন্য আসন্ন বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে ফেভারিট বলছেন শহিদ আফ্রিদি।

তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানের প্রধান শক্তি বোলিং। বোলিং দিয়েই প্রতিপক্ষ ঘায়েল করার পরিকল্পনা করে তারা। দলের ব্যাটিংও ভালো হচ্ছে। বড় মঞ্চে কিভাবে পারফর্ম করতে হয়, সেটি জানে দলের ব্যাটাররা। তবে বোলিংই পাকিস্তানকে সাফল্য এনে দিবে। সব মিলিয়ে আগামী বিশ্বকাপে অন্যতম ফেভারিট পাকিস্তান।’

২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠলেও ভারতের কাছে হেরে শিরোপা জিততে পারেনি পাকিস্তান। তবে ২০০৯ সালে পরের বিশ্বকাপেই শিরোপা জিতে নেয় পাকিস্তান।

২০০৯ সালের পর ২০২২ সালে অস্ট্রেলিয়ার অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছিলো পাকিস্তান। কিন্তু ইংল্যান্ডের কাছে হেরে শিরোপা জয়ের সুযোগ হাতছাড়া করে পাকরা।

বিশ্বকাপে ‘এ’ গ্রুপে খেলবে পাকিস্তান। ওই গ্রুপে তাদের প্রতিপক্ষ চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও আয়ারল্যান্ড। ৬ জুন ডালাসে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করবে বাবর-রিজওয়ানরা।