ঢাকা ০৩:৫৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঘূর্ণিঝড় রিমালে বিদ্যুৎহীন ২ কোটি ২২ লাখ মানুষ

  • বার্তা কক্ষ
  • আপডেট সময় : ১২:২০:০০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪
  • ১৯ বার পড়া হয়েছে

 

রবিবার (২৬ মে) ঘূর্ণিঝড় রিমালের আঘাতে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের (বিআরইবি) ৩ কোটি ৫৮ লাখ গ্রাহকের মধ্যে ২ কোটি ২২ লাখ গ্রাহকের বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের এক শীর্ষ কর্মকর্তার মতে, ৮১টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির (পিবিএস) ৬১টির অধীন এলাকায় এসব গ্রাহক বসবাস করছেন।

তিনি ইউএনবিকে বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার পর থেকে সোমবার পর্যন্ত যেসব এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ ছিল সেগুলো মূলত দেশের উপকূলীয় অঞ্চলে অবস্থিত।’

তিনি বলেন, মূলত ঘূর্ণিঝড়কবলিত এলাকায় দুর্ঘটনা এড়াতে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে বিদ্যুৎ সঞ্চালন বন্ধ রাখা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, পরিস্থিতির উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে পর্যায়ক্রমে বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থা পরীক্ষা করে আবার সংযোগ চালু করা হবে।

তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড় রিমালের আঘাতে কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা এখনো স্পষ্ট নয়। ‘আমরা এখন ঘূর্ণিঝড় উপদ্রুত এলাকা থেকে তথ্য সংগ্রহ করছি।’

ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় কন্ট্রোল রুম খোলাসহ বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়।

ট্যাগস :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

আপলোডকারীর তথ্য

পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশনা

ঘূর্ণিঝড় রিমালে বিদ্যুৎহীন ২ কোটি ২২ লাখ মানুষ

আপডেট সময় : ১২:২০:০০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪

 

রবিবার (২৬ মে) ঘূর্ণিঝড় রিমালের আঘাতে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের (বিআরইবি) ৩ কোটি ৫৮ লাখ গ্রাহকের মধ্যে ২ কোটি ২২ লাখ গ্রাহকের বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের এক শীর্ষ কর্মকর্তার মতে, ৮১টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির (পিবিএস) ৬১টির অধীন এলাকায় এসব গ্রাহক বসবাস করছেন।

তিনি ইউএনবিকে বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার পর থেকে সোমবার পর্যন্ত যেসব এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ ছিল সেগুলো মূলত দেশের উপকূলীয় অঞ্চলে অবস্থিত।’

তিনি বলেন, মূলত ঘূর্ণিঝড়কবলিত এলাকায় দুর্ঘটনা এড়াতে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে বিদ্যুৎ সঞ্চালন বন্ধ রাখা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, পরিস্থিতির উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে পর্যায়ক্রমে বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থা পরীক্ষা করে আবার সংযোগ চালু করা হবে।

তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড় রিমালের আঘাতে কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা এখনো স্পষ্ট নয়। ‘আমরা এখন ঘূর্ণিঝড় উপদ্রুত এলাকা থেকে তথ্য সংগ্রহ করছি।’

ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় কন্ট্রোল রুম খোলাসহ বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়।